4th Week Assignment 2021Assigment

Class 9 Geography Answer & Syllabus for 4th week 2021

The topic of discussion with you today is the Class 9 geography syllabus and answer sheets so if you are a class 9 student and geography are included in your syllabus. Then you will get the full collaboration of syllabus and answer sheets on geography from our world. So we realized that Google is an important and good topic that is a little difficult for students to create assignments because students are worried about assignments.

That’s why they want to create and submit a good and quality assignment but feel the need for cooperation. In this article, we have provided you with detailed information including the solution of the complete Q&A session on the subject of geography.

Recommended for you:

4th-week Assignment Syllabus 2021 for Geography

If you have not yet been able to collect the Geography Syllabus from the official website, then this syllabus is attached to our article which you can quickly download and collect.

Also read:

Class 9 Geography for 4th-week Assignment Answer 2021

The current Google is a great learning platform for students. That’s why students resorted to Google to solve any problem. Today we will head you here in detailed collaboration with Class 9 geography subject assignment answer sheets.

পরিবেশ বাঁচলে বাঁচবে পৃথিবী- অনধিক ৩০০ শব্দের একটি প্রতিবেদন।

ভূগোল ও পরিবেশ এর আন্তঃসম্পর্ক:
পৃথিবীর মানুষের আবাসভূমি। আমরা জানি জিওগ্রাফি তথা ভূগোল শব্দটির অর্থ পৃথিবীর বর্ণনা।

অধ্যাপক ম্যাকনি মানুষের আবাসভূমি হিসেবে পৃথিবীর আলোচনা বা বর্ণনাকে বলেছেন ভূগোল। তার মতে ভৌত ও সামাজিক পরিবেশে মানুষের কর্মকান্ড ও জীবনধারা নিয়ে যে বিষয়ে আলোচনা করা হয় , তাই ভূগোল।

অধ্যাপক স্ট্যাম্পের মতে , পৃথিবী ও এর অধিবাসিদের বর্ণনা ভূগোল।

কোন কোন ভূগোলবিদ ভূগোলকে বলেছেন পৃথিবীর বিবরণ , কেউ বলেছেন পৃথিবীর বিজ্ঞান।

অধ্যাপক কার্ল রিডার ভূগোলকে বলেছেন- পৃথিবীর বিজ্ঞান। প্রকৃতি , পরিবেশ ও সমাজ সম্পর্কে বিশেষ জ্ঞান হল ভূগোলের আলোচ্য বিষয়।

মানুষ যেখানে বাস করুক তাকে ঘিরে একটি পারিপার্শ্বিক অবস্থা বিরাজমান। প্রকৃতির সঙ্গে মিশে তৈরি হয় পরিবেশ।

নদী-নালা , পাহাড়-পর্বত , বন-জঙ্গল , ঘরবাড়ি, রাস্তাঘাট , উদ্ভিদ , প্রাণী , পানি , মাটি , বায়ু নিয়ে গড়ে ওঠে পরিবেশ। ভূগোলের আলোচ্য বিষয় হল পরিবেশ।

পূর্বের আলোচনা থেকে বলা যায় , ভূগোলকে যত ভাগে বিভক্ত করা হোক না কেন সকল ভূগোলের সঙ্গে পরিবেশ অঙ্গাঅঙ্গিভাবে জড়িত।

তাই বলা যায় , ভূগোল ও পরিবেশ এর মধ্যে আন্তঃসম্পর্ক রয়েছে।

পরিবেশ সংরক্ষণে আমাদের ভূমিকা :
পৃথিবীতে প্রাণের অস্তিত্ব টিকিয়ে রাখতে পরিবেশের সাথে সৌহার্দ্যপূর্ণ সম্পর্ক বজায় রাখা অত্যন্ত জরুরি।

মানুষসহ সব প্রাণের অস্তিত্ব পরিবেশের উপরই নির্ভরশীল। কারণ পরিবেশই প্রাণের ধারক ও বাহক। তাই ঝুঁকিপূর্ণ পরিবেশ প্রাণের অস্তিত্বের পক্ষে হুমকি।

মানুষ যেমন তার প্রয়োজনে পরিবেশকে নিজের উপযোগী করছে; ঠিক তেমনি সভ্যতার ক্রমবিবর্তনের সাথে সাথে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির উন্নতিতে মানুষ এমন পর্যায়ে পৌঁছেছে, যেখানে পরিবেশের ভারসাম্য নষ্ট হয়ে প্রাণের অস্তিত্ব ক্ষতির সম্মুখীন হচ্ছে।

জনসংখ্যা বৃদ্ধি, অসচেতনতা এবং অপরিকল্পিত পরিকল্পনা পরিবেশ দূষণের অন্যতম কারণ।

তাই বর্তমান প্রেক্ষাপটে পরিবেশ রক্ষা ও সংরক্ষণ করা সকলের নৈতিক দায়িত্ব। কারণ পরিবেশ সংকটের এই দায় সমগ্র মানব জাতির।

ভবিষ্যত প্রজন্মের জন্য পৃথিবীতে সুস্থভাবে প্রাণের অস্তিত্ব টিকিয়ে রাখতে পরিবেশ সংরক্ষণ করা অত্যন্ত জরুরি।

পরিবেশকে সুস্থ রাখতে গাছ সবচেয়ে বেশি জরুরি। অধিক পরিমাণে বৃক্ষরোপণ ও বনজ সম্পদকে রক্ষা করে বায়ু দূষণের মাত্রাকে কমানো সম্ভব।

বাস্তুতন্ত্রের যে সব জীব পরিবেশের ভারসাম্য বজায় রাখতে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখে, তাদের টিকিয়ে রাখার জন্য প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করা অত্যন্ত জরুরি।

পরিবেশ সংরক্ষণ সংক্রান্ত জাতীয় ও আন্তর্জাতিক যে সব নীতিমালা প্রণীত রয়েছে তার যথাযথ বাস্তবায়ন পরিবেশ দূষণের হাত থেকে পরিবেশকে বাঁচাতে পারে।

প্রাণের অস্তিত্বের জন্য পরিবেশের ভূমিকা সবচেয়ে বেশি। তাই পরিবেশ সংরক্ষণে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করে ভবিষ্যত প্রজন্মকে সুরক্ষিত করা আমাদের নৈতিক দায়িত্ব।

পরিবেশ সংরক্ষণের কয়েকটি উপায় নিম্নে উল্লেখ করা হলোঃ

পরিকল্পিতভাবে বাড়িঘর ও কলকারখানা নির্মাণ করা।
কলকারখানার বর্জ্য পরিশোধনের ব্যবস্থা নেওয়া।
প্লাস্টিক ও পলিথিন যেখানে সেখানে না ফেলা।
মৃত জীবজন্তু ও জৈব আবর্জনা মাটি চাপা দিয়ে রাখা।
বাড়িঘর, স্কুল, কলেজ ও রাস্তার পাশে গাছ লাগানো।
উপসংহার :
সভ্যতার উন্নতির সাথে সাথে মানুষ নিজেদের সুবিধার্থে তৈরি করছে নানারকম প্রযুক্তি, বাড়ছে ক্রমবর্ধমান হারে শক্তি উৎপাদনের চাহিদা যার থেকে নির্গত পদার্থ মানুষের স্বাস্থ্য ও পরিবেশ দূষণে অগ্রণি ভূমিকা পালন করে চলেছে।

কলকারখানা ও যানবাহনের ধোঁয়ার কারণে বায়ু দূষণে প্রাণীর বেঁচে থাকা কষ্টকর হয়ে উঠেছে। অধিক নগরায়ন, যানবাহন বৃদ্ধির প্রভাবে পরিবেশ তার বাসযোগ্যতা হারাচ্ছে।

মানুষ শারীরিক অসুস্থতাসহ নানা ধরনের সমস্যার সম্মুখীন হচ্ছে। বন ও জীববৈচিত্র্য রক্ষায় নিভর্রযোগ্য, দক্ষ ও স্বাথের্র দ্বন্‌দ্ব নয়্ত এমন ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে যেকোনো অবকাঠামো উন্নয়ন বিশেষ করে কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎ উৎপাদনসংশ্লিষ্ট প্রকল্পের পরিবেশগত প্রভাব মূল্যায়নসাপেক্ষে অনুমোদন করতে হবে।

পরিবেশ, পানি ও জলবায়ু পরিবর্তন-সংক্রান্ত যেকোনো কার্যক্রম-প্রকল্প প্রণয়ন এবং বাস্তবায়নে স্থানীয় জনগোষ্ঠীর অংশগ্রহণ বিশেষত জনগণের অভিজ্ঞতালব্ধ জ্ঞানকে গুরুত্ব প্রদান করতে হবে। জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবেলার সব কার্যক্রমে বিশেষ করে কার্যকর জলবায়ু অভিযোজন কার্যক্রমে ক্ষতিগ্রস্ত ও ঝুকিপূর্ণ জনগোষ্ঠী বিশেষ করে নারী, প্রান্তিক জনগোষ্ঠী এবং আদিবাসীদের ব্যাপক ও কার্যকর অংশগ্রহণ নিশ্চিত করতে হবে।

Abul Kalam

Hi, I'm Abul Kalam Azad. Now I'm working on a Private Bank in Bangladesh. In this website, I shall publish content on Finance Category. you can also know about the Banking system from our website. Anyone can know about Banking System in Bangladesh, Core Banking Review, Credit Card, Debit Card information, Agent Banking, and Mobile Banking Information from my content.

Related Articles

Back to top button
Close