বন্ধন এক্সপ্রেস ট্রেনের সময়সূচী, ভাড়ার তালিকা, বিরতি স্টেশন, অনলাইন টিকেট ও বিস্তারিত ২০২৩

রাজধানী কলকাতা থেকে পশ্চিমবঙ্গে যাতায়াতকারী ট্রেনিং হচ্ছে বন্ধন এক্সপ্রেস ট্রেন। বন্ধন এক্সপ্রেস ট্রেনটি বাংলাদেশ থেকে ভারতে চলাচল করে থাকে। বাংলাদেশ থেকে পার্শ্ববর্তী দেশ ভারতে যাওয়ার রাস্তা কে খুব সহজ করে দিয়েছে বন্ধন এক্সপ্রেস ট্রেনটি। বাংলাদেশের খুলনা শহর থেকে বন্ধন এক্সপ্রেস ট্রেন চলাচল করে। ২০১৭ সালের ৯ই নভেম্বর প্রথম বন্ধন এক্সপ্রেস পেন্টি কলকাতা ও বাংলাদেশী যাত্রা শুরু করেন। বাংলাদেশ থেকে ভারতের প্রতীক হয়ে দাঁড়িয়েছে বন্ধন এক্সপ্রেস ট্রেনটি। অনেকে কলকাতা থেকে বাংলাদেশ এবং বাংলাদেশ থেকে কলকাতা যাওয়ার জন্য বন্ধন এক্সপ্রেস ট্রেনটি বেছে নিয়ে থাকেন।

তাই প্রিয় পাঠক-পাঠিকা দের জন্য আজকের নিবন্ধনে থাকছে বন্ধন এক্সপ্রেস ট্রেনের সময়সূচী, ভাড়ার তালিকা ও অনলাইন টিকেট সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য।দীর্ঘদিন কলকাতা থেকে বাংলাদেশের ট্রেনের মাধ্যমে যাতায়াত বন্ধ ছিল। আর এখন কলকাতা থেকে বাংলাদেশে যাতায়াতের জন্য খুব সহজ মাধ্যম হিসেবে বন্ধন এক্সপ্রেস ট্রেনটি চালু করা হয়েছে। ট্রেনে যাতায়াত অনেকটা সহজ এবং নিরাপদ। অন্যান্য যানবাহন এর তুলনায় ট্রেনে যাতায়াত করতে বাড়তি কোনো জ্যাম পোহাতে হয় না।

নির্দিষ্ট সময়ের আগেই খুব দ্রুত নিজ গন্তব্যস্থলে পৌঁছানোর যায়। তাই অনেকেই দূরবর্তী স্থানে যাতায়াতের জন্য ট্রেন কে বেছে নিয়ে থাকে। বন্ধন এক্সপ্রেস ট্রেনে কলকাতা এবং বাংলাদেশে দুই দেশের নাগরিকগণ যাতায়াত করতে পারে। নির্দিষ্ট বৈধ কাগজপত্র থাকলেই খুব সহজেই কলকাতা থেকে বাংলাদেশে এবং বাংলাদেশ থেকে কলকাতা ট্রেনের মাধ্যমে ভ্রমণ করা যায়।

বন্ধন এক্সপ্রেস ট্রেনের সময়সূচী ২০২৩

ট্রেনের মাধ্যমে পার্শ্ববর্তী দেশে ভ্রমণ করার জন্য বন্ধন এক্সপ্রেস ট্রেনটি অন্যতম। আমরা অনেকে বাংলাদেশ থেকে কলকাতা এবং কলকাতা থেকে বাংলাদেশে বন্ধন এক্সপ্রেস ট্রেনের মাধ্যমে যাতায়াত করে থাকি। বন্ধন এক্সপ্রেস এর যাতায়াত করতে হলে অবশ্যই আমাদেরকে বন্ধন এক্সপ্রেস ট্রেনের সময়সূচী সম্পর্কে অবগত হতে হবে। বন্ধন এক্সপ্রেস ট্রেনের মাধ্যমে কলকাতা থেকে খুলনা আসতে মোট সময় লাগে ৫ ঘণ্টার মতো।

অর্থাৎ কলকাতা থেকে সকাল ৭ টা ৫ মিনিটে যাত্রী নিয়ে খুলনা আসতে সময় লেগে যায় দুপুর ১২ টার মতো। আবার অপরদিকে দুপুর দেড়টা থেকে বাংলাদেশ থেকে যাত্রী নিয়ে কলকাতা পৌঁছায়ে যায় রাত ৬ টা ১০ মিনিটে। নিচে বন্ধন এক্সপ্রেস এর সময়সূচী সম্পর্কে আরও বিস্তারিত তথ্য তুলে ধরা হলো।

বন্ধন এক্সপ্রেস ট্রেনের বিরতি স্টেশন ২০২৩

কলকাতা থেকে বাংলাদেশের দূরত্ব যেহেতু অনেকটাই বেশি তাই আমাদের অবশ্যই ট্রেনের বিরোধী স্টেশন সম্পর্কে জানা প্রয়োজন। বন্ধন এক্সপ্রেস ট্রেন যাতায়াতের জন্য অনেকেই গুগলে বন্ধন এক্সপ্রেস ট্রেনের বিরতি স্টেশন সম্পর্কে জানার জন্য সার্চ করে থাকেন। তাই আজ আমি আমার প্রিয় পাঠক পাঠিকাদের সুবিধার্থে বন্ধন এক্সপ্রেস ট্রেনের বিরতি স্ট্রেশন সম্পর্কে সকল তথ্য উল্লেখ করব।

বন্ধন এক্সপ্রেস ট্রেনের ভাড়ার তালিকা ২০২৩

বাংলাদেশের মধ্যে দ্বিতীয় শীততাপ নিয়ন্ত্রিত বন্ধন এক্সপ্রেস ট্রেন। অত্যন্ত বিলাসবহুল ও আধুনিকতা সম্পন্ন ট্রেন টি হচ্ছে বন্ধন এক্সপ্রেস ট্রেন। বন্ধন এক্সপ্রেস ট্রেনে এসি এবং নন এসি কেবিন এর ব্যবস্থা রয়েছে। বন্ধন এক্সপ্রেস ট্রেনে আপনি অনলাইন এবং অফলাইন দুটির মাধ্যমে টিকেট কাটতে পারবেন। টিকিট কাটার সময় অবশ্যই আপনার পাসপোর্ট ভিসা এবং প্রয়োজনীয় কাগজপত্র সাথে রাখতে হবে। বন্ধন এক্সপ্রেস এর কলকাতা থেকে খুলনা এসি কেবিনের টিকিট মূল্য ২০০০ টাকা। এবং শীততাপ নিয়ন্ত্রিত শেয়ারের মূল্য ১৫০০ টাকা।

যারা বন্ধন এক্সপ্রেস এর যাতায়াতের জন্য বন্ধন এক্সপ্রেস ট্রেনের সকল তথ্য জানার জন্য গুগলে সার্চ করে থাকেন তাদের সুবিধার্থে আজ আমি আমাদের এই ওয়েবসাইটে বন্ধন এক্সপ্রেস ট্রেনের ভাড়ার তালিকা, সময়সূচি, বিরতি স্টেশন সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য তুলে ধরেছি। আপনি খুব সহজে আমাদের এই পোস্ট টির মাধ্যমে বন্ধন এক্সপ্রেস ট্রেনের সকল তথ্য জেনে আপনি বন্ধন এক্সপ্রেস ট্রেনের যাতায়াত করতে পারবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *