নিসাব পরিমাণ সম্পদ কত টাকা

আল্লাহ তা’লার বিধান অনুযায়ী যাকাত দেওয়ারও এক বিশেষ পন্থা রয়েছে। ইসলাম ধর্মে আল্লাহ তা’লার দেখানো বিধান অনুযায়ী আমাদের প্রত্যেকটি কাজ নিয়ম মেনে আদায় করার উচিত। ইসলাম ধর্মের পাঁচটি স্তরের মধ্য যাকাত দেওয়ার অন্যতম। সাধারণত রমজান মাসে যাকাত সকল গরিব-দুঃখীদের মাঝে বিলিয়ে দেওয়া হয়ে থাকে। মানুষের অর্থ ধন সম্পদের উপর নির্ধারণ করে যাকাত দেওয়া হয়। যাকাত দেওয়ার ক্ষেত্রে আপনার সম্পদের পরিমাণ কত হলো সেই ক্ষেত্রে আপনাকে বিশেষ ভাবে গুরুত্ব দিতে হবে।

আপনার সম্পদের পরিমাণের অপর নির্ভর করে যাকাত দেওয়ার ফরজ বিধান রয়েছে। যাকাত সাধারণত গরিব-দুঃখীদের মাঝে বিলিয়ে দেওয়া হয়ে থাকে। নগদ টাকা হিসাব করে যাকাত প্রদান করা হয়ে থাকে। অর্থাৎ জাকাতের নিসাব এবং সম্পদের পরিমাণ এবং মূল্য নির্ধারণ করে প্রতিবছর রোজার মধ্য গরিব-দুঃখীদের মধ্য যাকাতের টাকা বেলিয়ে দেওয়া হয়। নিচে নিসাব পরিমাণ সম্পদ নিয়ে আরো বিস্তারিত ভাবে আলোচনা করা হলো।

নিসাব পরিমাণ সম্পদ কি?

সাধারণত নিসাব পরিমাণ সম্পদ বলতে বোঝায় সাড়ে সাত তোলা সোনা এবং সাড়ে ৫২ তোলা রুপার সমতুল্য সম্পদকে। বছরের পর বছর যে সম্পদ স্থায়ী থাকে অর্থাৎ নগদ টাকার উপর ভিত্তি করে যাকাত প্রদান করা হয়ে থাকে। নিজের অর্থ সম্পদের অতিরিক্ত টুকু গরিব-দুঃখীদের মাঝে বিলিয়ে দেওয়া হয়। যাকাত গরিব দুঃখীদের হক। মোট সম্পদের 40 ভাগের এক ভাগ যাকাত দেওয়া হয়ে থাকে। শুধু টাকার ওপরে যাকাত দেওয়া হয় না। শরীর, জামা, কাপড়, স্বর্ণ ইত্যাদির উপর যাকাত প্রদান করা হয়।

যাকাত দরিদ্র অভাবী এবং অক্ষমদের মাঝে মিলিয়ে দেওয়া হয়। আপনার মূল সম্পদ থেকে এক বছর পূর্ণ হলে নির্দিষ্ট সম্পদ থেকে ৪০ ভাগের একভাগ যাকাত দেওয়া হয়। যেকোনো পূর্ণ বয়স্ক নর নারী যাকাত প্রদান করতে পারবে। যাকাত সম্পর্কে মহান আল্লাহ তা’লা পবিত্র কুরআনে বলেছেন, আপনি তাদের সম্পদ থেকে সদকা গ্রহণ করুন, এর দ্বারা আপনি তাদেরকে পবিত্র করবেন ও পরিশোধিত করবেন, আপনার দোয়া তাদের জন্য স্বস্তিদায়ক, আল্লাহ সর্বশ্রোত সর্বজ্ঞ।’ (সুরা তাওবা, আয়াত : ১০৩)

এছাড়াও আল্লাহ তা’লা আরো বলেছেন যাকাত প্রদান করলেন নিজেদের মনের মতো শান্তি পাওয়া যায়। ঋণের বোঝা কমে আসে। দরিদ্রতা দূর করে এবং অর্থনৈতিক বৈষম্য হ্রাস করে। যাকাত সমাজের সকল দরিদ্র মানুষের হক। আমাদের সকলেরই উচিত নিজের সম্পদের ওপর নির্ভর করে গরিব-দুঃখীদের হক আদায় করা। এছাড়াও ইসলামে যাকাত সম্পর্কে আরো বিশেষ বিশেষ কথা উল্লেখ করা হয়েছে সেই সব সম্পর্কে আমাদের জেনে নেওয়া উচিত।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *